ভারতীয় সিভিল সার্ভিস

সিভিল সার্ভিস [Indian Civil Service]:-  ভারতে কোম্পানি শাসন প্রতিষ্ঠিত হওয়ার পর থেকেই কোম্পানির কর্মচারীরা ব্যাক্তিগত ব্যবসা করা এবং ঘুষ ও ভেট নেওয়া প্রভৃতি নানান দুর্নীতিমূলক কাজে জড়িয়ে পড়ে । লর্ড কর্নওয়ালিসের আমল থেকে শাসনকার্যে নিযুক্ত সাধারণ রাজকর্মচারীদের দুর্নীতিমুক্ত করে ভারতীয় শাসন ব্যবস্থাকে উন্নত করার উদ্দেশ্যে একদল শিক্ষিত, বুদ্ধিমান ও সূদক্ষ উচ্চপদস্থ রাজকর্মচারী নিয়োগ করার যে প্রথা চালু হয়, তা ভারতীয় সিভিল সার্ভিস নামে পরিচিত । লর্ড কর্নওয়ালিস ভারতে ব্রিটিশ সিভিল সার্ভিসের প্রকৃত প্রবর্তক ছিলেন । প্রথম দিকে ইংল্যান্ডের অভিজাত পরিবারের সন্তানরাই ভারতের সমস্ত উচ্চপদে নিযুক্ত হতেন । ইংল্যান্ড থেকে আগত তরুণ সিভিলিয়ানদের এদেশীয় ভাষা, সামাজিক রীতিনীতি শিক্ষা দেবার জন্য লর্ড ওয়েলেসলি কলকাতায় ১৮০০ খ্রিস্টাব্দের ২৪ শে নভেম্বর ফোর্ট উইলিয়াম কলেজ [Fort William College] স্থাপন করেন । পরে কোম্পানির পরিচালকবর্গের আপত্তিতে এটি বন্ধ করে দেওয়া হয় এবং ইংল্যান্ডের হেইলবেরিতে ১৮০৬ খ্রিস্টাব্দে ইস্ট ইন্ডিয়া কলেজ স্থাপন করে সেখানেই তরুণ সিভিলিয়ানদের প্রশিক্ষনের ব্যবস্থা হয় । এরপর  ১৮৫৩ সালের সনদ আইন অনুসারে, ইংল্যান্ডে অনুষ্ঠিত প্রতিযোগিতামূলক পরীক্ষায় সফল প্রার্থীদের মধ্যে থেকে ভারতীয় সিভিল সার্ভিসে অফিসার নিয়োগ করার ব্যবস্থা করা হয় । ঠিক হয় ১৮ থেকে ২৩ বছর বয়স্ক যে কোনো ব্রিটিশ প্রজা এই পরীক্ষায় বসতে পারবে । এই প্রথার মাধ্যমে ব্রিটিশ-ভারতে এক শ্রেণির দক্ষ ও পরিশ্রমী কর্মচারীর উদ্ভব ঘটে, যাদের আন্তরিক প্রচেষ্টায় এদেশে ব্রিটিশ শাসন সুদৃঢ়ভাবে প্রতিষ্ঠিত হয় । এই জন্য ভারতীয় সিভিল সার্ভিসকে ব্রিটিশ রাজত্বের প্রধান স্তম্ভ বলা হত । তবে এই শাসন ব্যবস্থায় ভারতীয়দের কোনো উন্নতি হয়নি, কারণ ভারতীয় সিভিল সার্ভিসের প্রধান লক্ষ্য ছিল ইংল্যান্ডের স্বার্থরক্ষা করা ।

***