দ্বিতীয় ইঙ্গ-মহীশূর যুদ্ধ

দ্বিতীয় ইঙ্গ-মহীশূর যুদ্ধ [Second Anglo-Mysore War] : প্রথম ইঙ্গ-মহীশূর যুদ্ধে ১৭৬৯ খ্রিস্টাব্দে স্বাক্ষরিত মাদ্রাজ চুক্তির (Madras Treaty) শর্ত ইংরেজগণ পরবর্তীকালে পালন করেন নি । ১৭৭১ খ্রিস্টাব্দে মারাঠাগণ মহীশূর আক্রমণ করলে প্রথম ইঙ্গ-মহীশূর যুদ্ধে স্বাক্ষরিত মাদ্রাজ চুক্তির শর্ত অনুযায়ী হায়দার আলি ইংরেজ বাহিনীর কাছে সাহায্যের আবেদন করে । কিন্তু হায়দার আলির আবেদনে ইংরেজ বাহিনী কর্ণপাত করে নি এবং মহীশূরকে সাহায্য করতে এগিয়ে আসে নি । ফলে হায়দর আলি অসন্তুষ্ট হন । তারপর ১৭৭৯ খ্রিস্টাব্দে মহীশূরে ফরাসিদের শক্তিশালী বাণিজ্যকেন্দ্র মাহে বন্দর ইংরেজরা দখল করলে ক্রুদ্ধ হায়দর এর প্রতিবাদ জানান ও ১৭৮০ খ্রিস্টাব্দে দ্বিতীয় ইঙ্গ-মহীশূর যুদ্ধ [Second Anglo-Mysore War] যুদ্ধ শুরু হয় । ওয়ারেন হেস্টিংস [Warren Hastings] তার কূটনীতির দ্বারা নিজাম ও মারাঠাদের হায়দর আলির কাছ থেকে বিচ্ছিন্ন করেন । তথাপি হায়দর আলি ইংরেজদের বিরুদ্ধে যুদ্ধ চালিয়ে যান । ১৭৮১ খ্রিস্টাব্দে পোর্টোনোভোর যুদ্ধে হায়দর আলি ইংরেজ সেনাপতি আয়ারকুটের হাতে পরাজিত হন এবং নেগাপত্তম, ত্রিঙ্কোমালি প্রভৃতি স্থান ইংরেজদের দখলে আসে । এই সময় হায়দর আলি ফারাসি সাহায্য চেয়ে পাঠান । তখন ফরাসি নৌ-সেনাপতি সাফ্রেনের অধীনে এক ফরাসি নৌবাহিনী হায়দর আলির সাহায্যে এগিয়ে আসেন । এক সংকটময় পরিস্থিতিতে হঠাৎ হায়দর আলির অকাল মৃত্যু হয় । তারপর তাঁর পুত্র টিপু সুলতান যুদ্ধ চালিয়ে যান । শেষ পর্যন্ত ১৭৮৪ খ্রিস্টাব্দে টিপু সুলতান ও ইংরেজদের মধ্যে ম্যাঙ্গালোরের সন্ধি [Treaty of Mangalore] স্বাক্ষরিত হয় ও দ্বিতীয় ইঙ্গ-মহীশূর যুদ্ধের অবসান ঘটে । ম্যাঙ্গালোরের সন্ধির শর্ত অনুযায়ী উভয় পক্ষই পরস্পরের বিজিত রাজ্য পরস্পরকে প্রত্যর্পণ করে । ঐতিহাসিক মহিবুল হুসেনের মতে এই ম্যাঙ্গালোর সন্ধি ছিল টিপু সুলতানের কাছে ‘কূটনৈতিক জয়’ । ম্যাঙ্গালোর সন্ধির শর্ত অনুযায়ী উভয় পক্ষই সম্মত হয় যে পরস্পরের বিরুদ্ধে শত্রুকে সাহায্য না করা ।

***