আবহাওয়া ও জলবায়ুর উপাদান

Submitted by administrator on Thu, 10/31/2013 - 10:41

☼ আবহাওয়া  [Defination of Weather] :- কোনও নির্দিষ্ট জায়গার কোনও নির্দিষ্ট দিনের বা কয়েকদিনের বায়ুর তাপ, চাপ, বায়ুপ্রবাহ, বৃষ্টিপাত প্রভৃতির অবস্থাকে আবহাওয়া [Weather] বলে ।  বিভিন্ন দিনে, এমনকি যে কোনো দিনের বিভিন্ন সময়ে, আবহাওয়ার পরিবর্তন ঘটে ।


☼ জলবায়ুর সংজ্ঞা [Defination of Climate]:- দিনের বিভিন্ন সময়ের আবহাওয়ার অবস্থা লক্ষ করে দৈনিক গড় অবস্থা নির্ণয় করা হয় । এইভাবে মাসের বিভিন্ন দিনের আবহাওয়ার গড় অবস্থা থেকে মাসিক গড় অবস্থা নিরূপণ করা হয় । সাধারণত কোনও জায়গায় 35 বছরের আবহাওয়ার গড় অবস্থাকে সেই জায়গার জলবায়ু [Climate] বলা হয় ।

☼ আবহাওয়া ও জলবায়ুর উপাদান [Elements of Weather and Climate]:- আবহাওয়া ও জলবায়ুর উপাদান হল

(i) বায়ুর উষ্ণতা,

(ii) বায়ুর চাপ,

(iii) বায়ুপ্রবাহ,

(iv) বায়ুর আর্দ্রতা,

(v) মেঘ,

(vi) বৃষ্টি প্রভৃতি ।

আবহাওয়া ও জলবায়ুর প্রকৃতি কি রকম হবে তা এইসব বিষয়ের উপর নির্ভর করে ।

 
(i) বায়ুর উষ্ণতা [Air Temperature] : আবহাওয়া ও জলবায়ুর একটি প্রধান উপাদান হল বায়ুর উষ্ণতা ।  বায়ুর উষ্ণতা বলতে বায়ুর তাপমাত্রাকে বোঝায় । বায়ুর তাপের প্রধান উত্স হল সূর্যরশ্মি । সূর্যরশ্মি সৌরশক্তির আকারে ভু-পৃষ্ঠে এসে যে তাপ সঞ্চার করে । একে সূর্যের তাপীয় ফল [Insolation] বলে । সূর্যের তাপীয় ফলের প্রভাবে বায়ু উত্তপ্ত হয় ।  তাপমান যন্ত্র [Thermometer], গরিষ্ঠ ও লঘিষ্ঠ তাপমান যন্ত্র [Maximum and Minimum Thermometer] প্রভৃতি দিয়ে বায়ুর তাপ মাপা হয় ।
কোনও জায়গায় জলবায়ু কীরকম হবে তা অনেকাংশে বায়ুর তাপমাত্রার উপর নির্ভর করে । দিন বড় হলে বায়ু বেশি সময় সূর্যের তাপ পায়, ফলে বেশি উত্তপ্ত হয় । আবার দিন ছোটো হলে বায়ু, সূর্য থেকে কম তাপ পায়, ফলে বায়ুর তাপমাত্রা কম হয় । শীতকালে দিন ছোটো ; তাই বায়ুর উষ্ণতাও কম হয় । সাধারণত দিনের শেষভাগে ঠিক মধ্যাহ্নের পরে দিনের তাপমাত্রা সবচেয়ে বেশি এবং রাতের শেষভাগে তাপমাত্রা সবচেয়ে কম লক্ষ করা যায় ।
 

☼ বায়ুর উষ্ণতার [Air Temperature] সঙ্গে জলবায়ুর অন্যান্য উপাদানের সম্পর্ক:-

(ক) বায়ু উত্তপ্ত হলে হালকা হয়; হালকা বায়ুর চাপ কম । তাই বায়ু উষ্ণ হলে হালকা হয়ে উপরের দিকে উঠে যায় এবং নিম্নচাপ কেন্দ্রের সৃষ্টি করে । বায়ু শীতল হলে ভারী হয় । ভারী বায়ুর চাপ বেশি । তাই ভারী বায়ু নীচের দিকে নামে । ফলে শীতল বায়ু উচ্চ চাপকেন্দ্র গঠন করে ।  
(খ) বায়ুর চাপের পার্থক্যের ফলে উচ্চচাপ কেন্দ্র থেকে বায়ু নিম্নচাপ কেন্দ্রের দিকে ছুটে যায়, এইভাবে বায়ুপ্রবাহের সৃষ্টি হয় ।
(গ) শীতল বায়ুর চেয়ে উষ্ণ বায়ুর জলীয় বাষ্প ধারণ করার ক্ষমতা বেশি ।  উষ্ণ আর্দ্র বায়ু উপরে উঠে শীতল হলে বৃষ্টিপাত ঘটায় ।
***

Related Items

বায়ুমন্ডলের তাপ ও তাপের তারতম্যের কারণ

বায়ুমন্ডলের তাপ ও তাপের তারতম্যের কারণ:-

 

ছোটো প্রশ্ন ও উত্তর:[পঞ্চম অধ্যায়]

প্রশ্ন:- প্রতি ১ হাজার মিটার উচ্চতায় কত তাপমাত্রা হ্রাস পায় ?

উত্তর:- প্রতি ১ হাজার মিটার উচ্চতায় ৬.৪o ডিগ্রী সেলসিয়াস তাপমাত্রা হ্রাস পায় ।

 

ছোটো প্রশ্ন ও উত্তর:[চতুর্থ অধ্যায়]

প্রশ্ন:- বায়ুমণ্ডলের ঊর্ধসীমা কত ?

উত্তর:- বায়ুমণ্ডলের ঊর্ধসীমা হল ১০,০০০ কি.মি.

 

প্রশ্ন:- হোমোস্ফিয়ার বায়ুস্তরটি ভূপৃষ্ঠ থেকে কত দূর উচ্চতা পর্যন্ত বিস্তৃত  ?

পঞ্চম অধ্যায়ঃ বায়ুমন্ডলের তাপ ও চাপের তারতম্যের কারণ

বায়ুমন্ডলের তাপ ও চাপের তারতম্যের কারণ:-

 

বায়ুর উষ্ণতার তারতম্যের কারণ

[i] বিকিরণ [Radiation] ,

[ii] পরিবহন [Conduction]  

[iii] পরিচলন [Convection] ।