ছোটো প্রশ্ন ও উত্তর:( প্রথম অধ্যায় )

ছোটো প্রশ্ন ও উত্তর  ( Short questions and answers)-

 

প্রশ্ন:-   কোন প্রত্নতাত্ত্বিক উপাদান থেকে রাজা অশোক ও তাঁর কীর্তিকলাপ সম্বন্ধে ধারণা পাওয়া যায় ?

উত্তর:- শিলালিপি নামক প্রত্নতাত্ত্বিক উপাদান থেকে রাজা অশোক ও তাঁর কীর্তিকলাপ সম্বন্ধে ধারণা পাওয়া যায়

 

প্রশ্ন:-  প্রাচীন ভারতের প্রথম ইতিহাসমূলক গ্রন্থ কোনটি ? সেটি কার রচনা ?

উত্তর:- প্রাচীন ভারতের প্রথম ইতিহাসমূলক গ্রন্থের নাম রাজতরঙ্গিনী  । এটি কলহন-এর রচনা ।

 

প্রশ্ন:-  ভারতের প্রাচীনতম নাম কি ছিল ?

উত্তর:- ভারতের প্রাচীনতম নাম ছিল জম্বুদ্বীপ

 

প্রশ্ন:-  কোন রাজার নাম অনুসারে ভারতবর্ষ নামকরণ হয় ?

উত্তর:- পৌরাণিক যুগের সাগর বংশের সন্তান রাজা ভরতের নাম অনুসারে আমাদের দেশের নামটি এসেছে ভারত বা ভারতবর্ষ ।

 

প্রশ্ন:-   কোন পর্বতমালা ভারতের উত্তর সীমান্তে বিরাজমান ?

উত্তর:- হিমালয় পর্বতমালা ভারতের উত্তর সীমান্তে বিরাজমান ।

 

প্রশ্ন :-   কোন নদীর নাম অনুসারে ভারতবর্ষের নাম ইন্ডিয়া বা হিন্দুস্থান হয়েছে ? 

উত্তর:-  সিন্ধুনদীর নাম অনুসারে ভারতবর্ষের নাম ইন্ডিয়া বা হিন্দুস্থান হয়েছে

 

প্রশ্ন :-  ভারতবর্ষকে হিন্দুস্থান আখ্যা দিয়েছিলেন কারা ? 

উত্তর:-  আলেকজান্ডারের ভারত আক্রমণের সময় এদেশে আসা গ্রিকরা ভারতবর্ষকে হিন্দুস্থান আখ্যা দিয়েছিলেন , মতান্তরে খ্রিস্টপূর্ব ষষ্ঠ শতাব্দিতে পারস্য সম্রাট দারায়ুস ভারতবর্ষকে হিন্দুস্থান আখ্যা দিয়েছিলেন ।

 

প্রশ্ন:-   ভারতকে ‘নৃতত্বের জাদুঘর’ কে বলেছেন ? 

উত্তর:- ঐতিহাসিক ভিনসেন্ট স্মিথ ভারতকে ‘নৃতত্বের জাদুঘর’  বলেছেন।

 

প্রশ্ন:-  দক্ষিণ ভারতের অধিবাসীরা কোন জাতির বংশধর ?

উত্তর:-  দক্ষিণ ভারতের অধিবাসীরা দ্রাবিড় জাতির বংশধর  ।

 

প্রশ্ন:-   ভারতেরবর্ষে মোঙ্গল জাতির বংশধর কারা ?

উত্তর:-  আসামি, নেপালি, ভুটিয়া, প্রভৃতি মোঙ্গল জাতির বংশধর ।

 

প্রশ্ন:-   বাঙালিরা কোন জাতির বংশধর ?

উত্তর:-  বাঙালিরা নেগ্রিটো ও নর্ডিক জাতির সংমিশ্রিত বংশধর  ।

 

প্রশ্ন:-   সাঁওতালরা কোন জাতির বংশধর ?

উত্তর:-  সাঁওতালরা নেগ্রিটো জাতির বংশধর  ।

 

প্রশ্ন:-  প্রাচীন ভারতের প্রশস্তিমূলক শিলালিপি গুলির নাম করো

উত্তর:-  (ক) গুপ্ত সম্রাট সমুদ্র গুপ্তের এলাহাবাদ প্রশস্তি  (খ) চালুক্যরাজ দ্বিতীয় পুলকেশীর আইহোল প্রশস্তি  (গ) গুপ্ত সম্রাট স্কন্দগুপ্তের ভিতারি শিলালিপি  (ঘ) গৌতমী বলশ্রী রচিত নাসিক প্রশস্তি

 

প্রশ্ন:-  কে অশোকের শিলালিপির পাঠোদ্ধার করেন ?

উত্তর:-  উনিশ শতকের খ্যাতনামা প্রত্নতত্ববিদ জেমস প্রিন্সেপ অশোকের শিলালিপির পাঠোদ্ধার করেন ।

 

প্রশ্ন:-  ’ হস্তিগুম্ফা লিপি’ থেকে কোন ভারতীয় রাজার কথা জানা যায় ?

উত্তর:-  ’ হস্তিগুম্ফা লিপি’ থেকে  কলিঙ্গরাজ খারবেলের কথা জানা যায় ।

 

প্রশ্ন:-   বৈদিক সাহিত্যের কোন অংশকে বেদান্ত বলা হয় ?

উত্তর:-  উপনিষদকে বৈদিক সাহিত্যের বেদান্ত বলা হয় ?

 

প্রশ্ন:-. ভারতের উত্তর-পশ্চিম সীমান্তের তিনটি গিরিপথের নাম লেখো ।

উত্তর:- তিনটি গিরিপথের নাম - খাইবার,বোলান, ও গোমাল

 

প্রশ্ন:-   দক্ষিণ ভারতের একটি প্রধান নদীর নাম লেখো ।

উত্তর:- দক্ষিণ ভারতের একটি প্রধান নদীর নাম গোদাবরী

 

প্রশ্ন:-  ভারতের কোন কোন দিক  সমুদ্র দিয়ে বেষ্টিত ?

উত্তর:- দক্ষিণ-পূর্ব , দক্ষিণ-পশ্চিম , দক্ষিণ দিক সমুদ্র দিয়ে বেষ্টিত ।

 

প্রশ্ন:-  কার আমলে জুনাগড় লিপি রচিত হয় ?

উত্তর:- শক সম্রাট (মহাক্ষএপ) রুদ্রদামনের আমলে জুনাগড় লিপি রচিত হয় ।

 

প্রশ্ন:-   কোন শিলালিপি থেকে স্কন্দগুপ্তের হূণ আক্রমণকারীদের পরাজিত করার তথ্য পাওয়া যায় ?

উত্তর:-  ভিতারি শিলালিপি থেকে স্কন্দগুপ্তের হূণ আক্রমণকারীদের পরাজিত করার তথ্য পাওয়া যায় ।

 

প্রশ্ন:-  এলাহাবাদ প্রশস্তি কার রচনা ?

উত্তর:-  এলাহাবাদ প্রশস্তি সমুদ্র গুপ্তের সভাকবি হরিষেণের রচনা  ।

 

প্রশ্ন:-   নাসিক প্রশস্তিতে কোন সাতবাহন রাজার কীর্তি বর্ণিত আছে ?

উত্তর:-  নাসিক প্রশস্তিতে সাতবাহন বংশের শ্রেষ্ঠ রাজা গৌতমীপুত্র সাতকর্ণীর কীর্তি বর্ণিত আছে  ।

 

প্রশ্ন:-  নানাঘাট শিলালিপি থেকে কোন রাজার সম্বন্ধে জানা যায় ?

উত্তর:-  নানাঘাট শিলালিপি থেকে সাতবাহন রাজা প্রথম সাতকর্ণীর সম্বন্ধে জানা যায় ।

 

প্রশ্ন:-   নানাঘাট শিলালিপি কার সময়ে খোদিত হয় ?

উত্তর:-  সাতবাহন রাজা প্রথম সাতকর্ণীর সময়ে নানাঘাট শিলালিপি খোদিত হয় ।

 

প্রশ্ন:-   বাণভট্ট কার সভাকবি ছিলেন ?

উত্তর:-  বাণভট্ট হর্ষবর্ধনের সভাকবি ছিলেন ।

 

প্রশ্ন:-   হর্ষচরিত কার রচনা ?

উত্তর:-  হর্ষচরিত হর্ষবর্ধনের সভাকবি বাণভট্টের রচনা ।

 

প্রশ্ন:-   বাণভট্টের লেখা একটি জীবন চরিতের নাম লেখো ?

উত্তর:-   বাণভট্টের লেখা একটি জীবন চরিতের নাম হর্ষচরিত  ।

 

প্রশ্ন:-   রাজতরঙ্গিনী গ্রন্থটি কে রচনা করেন ?

উত্তর:-  রাজতরঙ্গিনী গ্রন্থটি কলহন রচনা করেন ।

 

প্রশ্ন:-   কলহনের রাজতরঙ্গিনী গ্রন্থটি থেকে কোন অঞ্চলের ইতিহাস জানা যায় ?

উত্তর:-  কলহনের রাজতরঙ্গিনী গ্রন্থটি থেকে কাশ্মীরের ইতিহাস জানা যায় ।

 

প্রশ্ন:-   অর্থশাস্ত্র গ্রন্থটি কে রচনা করেন ?

উত্তর:-  অর্থশাস্ত্র গ্রন্থটি চন্দ্রগুপ্ত মৌর্যের মন্ত্রী কৌটিল্য বা চাণক্য রচনা করেন ।

 

প্রশ্ন:-   আইহোল প্রশস্তি কে রচনা করেন ?

উত্তর:-  চালুক্যরাজ দ্বিতীয় পুলাকেশীর সভাকবি রবিকীর্তি  আইহোল প্রশস্তি রচনা করেন ।

 

প্রশ্ন:-   আইহোল প্রশস্তিতে কোন রাজার কীর্তি বর্ণনা করা আছে ?

উত্তর:-  আইহোল প্রশস্তিতে চালুক্যরাজ দ্বিতীয় পুলাকেশীর কীর্তি বর্ণনা করা আছে ।

 

প্রশ্ন:-   মুদ্রারাক্ষস কার রচনা ?

উত্তর:-  মুদ্রারাক্ষস গুপ্তযুগের লেখক-কবি বিশাখাদত্তের রচনা ।

 

প্রশ্ন:-  ভারতের পুরাণের সংখ্যা কয়টি ? এদের মধ্যে তিনটি পূরাণের নাম লেখো ।

উত্তর:- পূরাণের সংখ্যা আঠারোটি  । এদের মধ্যে তিনটি হল - বিষ্ণু পুরাণ, বায়ু পূরাণ , মৎস পূরাণ

 

প্রশ্ন:-  প্রাচীন ভারতীয় জাতিগোষ্ঠিকে প্রধানত কয়টি শ্রেণীতে বিভাক্ত করা যায় ?

উত্তর:- প্রাচীন ভারতীয় জাতিগোষ্ঠিকে প্রধানত চারটি শ্রেণীতে বিভাক্ত করা যায় - যথা :- (ক) আর্য জাতি   (খ) দ্রাবিড় জাতি   (গ) নেগ্রিটো জাতি   (ঘ)  মঙ্গোলীয় জাতি ।

 

প্রশ্ন;-  কারা নর্ডিক নামে পরিচিত ?

উত্তর:- আর্যরা নর্ডিক নামে পরিচিত ।

 

প্রশ্ন:-  আর্যজাতির বংশধর কারা ?

উত্তর:-  কাশ্মিরী, পাঞ্জাবি প্রভৃতি আর্যজাতির বংশধর ।

 

প্রশ্ন:-  রাজপুতরা কোন জাতির বংশধর ?

উত্তর:-  রাজপুতরা হূন জাতির বংশধর ।

 

প্রশ্ন:-   বুদ্ধচরিতের রচয়িতা কে  ?

উত্তর:-  কুষাণ যুগের বৌদ্ধ দার্শনিক অশ্বঘোষ  বুদ্ধচরিত রচনা করেন  ।

 

প্রশ্ন:-   গীতগোবিন্দ কাব্য কে রচনা করেন ?

উত্তর:-  কবি জয়দেব গীতগোবিন্দ কাব্য রচনা করেন

 

প্রশ্ন:-  গৌরবাহ গ্রন্থের রচয়িতা কে ?

উত্তর:- বাকপতি রাজ গৌরবাহ গ্রন্থের রচয়িতা 

 

প্রশ্ন:-  মহাকবি কালিদাসের লেখা উল্লেখযোগ্য কাব্যগ্রন্থ গুলির নাম লেখো

উত্তর:- মহাকবি কালিদাসের লেখা  কাব্যগ্রন্থ গুলির মধ্যে ‘অভিজ্ঞানম শকুন্তলম’ , ‘মেঘদূত’ ,’ মালবিকা’ প্রভৃতি  উল্লেখযোগ্য ।

 

প্রশ্ন:-  সিংহলের বৌদ্ধ ধর্মগ্রন্থ গুলির মধ্যে দুটির নাম লেখো

উত্তর:-  দীপবংশ ও মহাবংশ  ।

 

প্রশ্ন:-   ইন্ডিকা কে রচনা করেন ?

উত্তর:-  চন্দ্রগুপ্ত মৌর্যের রাজসভায় উপস্থিত গ্রিক্দূত মেগাস্থিনিস ইন্ডিকা রচনা করেন ।

 

প্রশ্ন:-  কোন বিদেশী লেখকের রচনা থেকে আমরা মৌর্যযুগের ইতিহাস জানতে পারি ?

উত্তর:-  চন্দ্রগুপ্ত মৌর্যের রাজসভায় উপস্থিত গ্রিক্দূত মেগাস্থিনিসের রচনা থেকে আমরা মৌর্যযুগের ইতিহাস জানতে পারি ।

 

প্রশ্ন:-   সন্ধ্যাকর নন্দী কে ছিলেন ?

উত্তর:-  রামচরিত গ্রন্থের রচয়িতা ছিলেন সন্ধ্যাকর নন্দী ।

 

প্রশ্ন:-   আইন-ই-আকবরি কে রচনা করেন ?

উত্তর:-   আবুল ফজল আইন-ই-আকবরি রচনা করেন ।

 

প্রশ্ন:-  প্লিনি রচিত গ্রন্থটির নাম কী ?

উত্তর:-  প্লিনি রচিত গ্রন্থটির নাম ন্যাচারালিস হিস্টোরিয়ো । প্রথম শতাব্দিতে রচিত এই গ্রন্থ থেকে ভারতের সঙ্গে রোমান সাম্রাজ্যের বাণিজ্যিক লেনদেনের পরিচয় পাওয়া যায় ।

 

প্রশ্ন:-  তহকিক-ই-হিন্দ  কার লেখা ?

উত্তর:-  তহকিক-ই-হিন্দ-এর লেখক আরব ঐতিহাসিক আল বেরুনী  ।

 

প্রশ্ন:-  রামচরিত গ্রন্থতি কে রচনা করেন ?

উত্তর:- রামচরিত গ্রন্থতি সন্ধ্যাকর নন্দী রচনা করেন ।

 

প্রশ্ন:-   রামচরিত মানস কে রচনা করেন ?

উত্তর:-  কবি তুলসীদাস  ‘রামচরিত মানস’ রচনা করেন ।

 

প্রশ্ন:-  আলবেরুনীর প্রকৃত নাম কী ?  তাঁর গ্রন্থের নাম কী  ?

উত্তর:-  আলবেরুনীর প্রকৃত নাম  আবু রিহান ।  তাঁর গ্রন্থের নাম তহকিক-ই-হিন্দ ।

 

প্রশ্ন:-  প্রাচীন কালের দুই জন রোমান লেখকের নাম লেখো

উত্তর:-  প্রাচীন কালের দুই জন রোমান লেখকের নাম প্লুটার্ক ও প্লিনি ।

*****